4.8
(4)

দেখতে দেখতে চুয়াডাঙ্গাতে থাকার সময় শেষ হয়ে আসছে । আর দুইদিন পরে আবার ঢাকায় ফিরে যাবো । আমার ঢাকার সেই জীবন শুরু হবে ।

ঢাকাতে যখন প্রথম বার যাই তখন আমার মনে হয়েছিল যে আমি বুঝি সেখানে একটা দিনও টিকবো না । আমি সারা জীবনই হোমসিক ধরনের মানুষের । বাড়ির মানুষ জনের সাথে আমার খুব একটা ভাল ভালো বাসা মিলমিশ ছিল না কোন কালেই, আমি সারা জীবনই একা থাকতে পছন্দ করি, একা থাকতেই ভালো বাসি । একা একা থেকেছি সব সময় । নিজের বাসায় থাকলেও নিজের ঘরে সবার থেকে আলাদা থেকেছি এটাই আসলে আমি । কিন্তু তারপরেও আমি নিজের বাসায় ছিলাম বলে সব কিছু নিজের মনে হত । কিন্তু ঢাকাতে পৌছে সব কিছু উল্টোপাল্টা হয়ে গেল । কিছুই যেন আমার নিজের না সেখানে । সব কিছুতেই আল্গা একটা ভাব, একটা পরপর ভাব ছিল । প্রথম বছরটা আমার কেটেছে খুব বেশি খারাপ। তারপর থেকে নিজের করে সব হওয়া শুরু হল । ঢাকা ভাল লাগতে শুরু করলো। সেই ভাল লাগা থেকে চুয়াডাঙ্গার উপর থেকে ভাল লাগা আস্তে আস্তে কমে গেল । তারপর জীবনের সাথে এমন কিছু হয়ে গেল যে এখানে বুঝি আর আসাই হবে না । কিন্তু চাইলেই সব রুট তো আর বন্ধ করে দেওয়া যায় না । আবারও আগের মতই অনুভূতি হত ।

প্রায় দশ দিন হয়ে গেল চুয়াডাঙ্গাতে রয়েছে । সারাদিন কোন কাজ নেই । দুইদিন কেবল বাইরে বের হয়েছি । কোন কাজ করার নেই । লেখালেখি করতে ইচ্ছে করছে না খুব একটা । এখানে লেখালেখির জন্য টেবিল নেই । আমি আমার টেবিলে বসে লিখতে বেশি পছন্দ করি । অন্য কোন ক্ষেত্রে আমার লেখা বের হতে চায় না । আর ইদানীং আরেকটা নতুন সমস্যা হচ্ছে যে এক স্থানে বেশি সময় ধরে বসে থাকলে পায়ে ব্যাথা হয় । এ ব্যাপারটা নতুন শুরু হয়েছে । এই জন্য আমার লেখার গতি কমে এসেছে ।

আগে যখনি চুয়াডাঙ্গাতে আসতাম তখন একটা লক্ষ্যই থাকতো প্রেমিকার সাথে দেখা করতে যাওয়া । এখন আর সেই মনভাব আর নেই । একদমই নেই । এটা এক দিক দিয়ে বেশ ভাল । নিজের মন থেকেই আমার সেই প্রথম প্রেমিকার সকল অনুভূতি আমি একেবারে বের করে দিতে পেরেছি। তার প্রতি আমার আর কোন আগ্রহ নেই । আমার জীবনের সাথে তার আর কিছুই যুক্ত নয় । এমন অনেক হয় যে সারা জীবন কেটে যায় তবুও মানুষ প্রেমিক/প্রেমিকার মোহ থেকে বের হতে পারে না, অন্তত চয় বছর যার সাথে প্রেম করেছি এমন কারো থেকে বের হওয়া খুব একটা সহজ না । কিন্তু সেটা সম্ভব হয়েছে । তবে দুঃখের ব্যাপার হচ্ছে একটা থেকে বের হয়ে অন্য আরেকজনের ভেতরে আমি ঢুকেছি । এটার জন্য অবশ্য কারণ আছে । সেটা নিয়ে অন্য কোন দিন কথা বলব । আজকের লেখা এই পর্যন্ত । দেখা যাক রাতের দিকে গল্প পোস্ট করা যায় কিনা !

অবাই ভাল থাকুন ।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 4.8 / 5. Vote count: 4

No votes so far! Be the first to rate this post.

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *